image
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হিন্দু সম্প্রদায়ের মন্দির ভাংচুর ঘরবাড়ি লুটপাট আহত শতাধিক | Hinduwap.com |
235 days ago
ফেইসবুকে ইসলাম অবমাননার অভিযোগ তুলে ব্রাহ্মণবড়িয়ার নাসিরনগরে মন্দির ভাংচুর হিন্দুদের ঘরবাড়ি লুটপাট ঘটনা ঘটেছে। রবিবার এ ঘটনা ঘটেছে বর্তমানে ওই এলাকার হিন্দু সম্প্রদায়েরা ঘরছাড়া এবং হামলায় আহত শতাধিক। এসব ঘটনায় পুরো নাসিরনগর জুড়েই এখন হিন্দুদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজনের কান্না যেন থামছেই না।
প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান জানান, দুপুরে কয়েকশ লোক সরাইল- নাসিরনগর-লাখাই সড়ক অবরোধ করে টায়ার
জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করে। পরে দেশি অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে নাসিরনগর সদরের দত্তবাড়ির মন্দির, নমসুদ্রপাড়া মন্দির, জগন্নাথ মন্দির, ঘোষপাড়া মন্দির, গৌরমন্দির গুঁড়িয়ে দেয়। হামলাকারীরা হিন্দুদের বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও লুটপাট করে।এ ঘটনায় নাসিরনগরে দু’টি সংগঠনের উদ্যোগে এ সমাবেশ ডাকা হয়েছিল। সমাবেশ চলাকালে শত শত লোক দা, লাঠি-সোটা নিয়ে হামলায় অংশ নেয়। হামলাকারীদের মধ্যে বেশিরভাগই যুব বয়সের ও তাদের পরণে প্যান্ট শার্ট ছিল বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন। কেউ একজন ঘোড়ায় চড়ে এসে হামলা চালান। উপজেলা সদরের দত্তপাড়া, ঘোষপাড়া, গাংকুলপাড়া পাড়া, মহাকাল পাড়া, কাশিপাড়া, নমসুদপাড়া, মালিপাড়া, শীলপাড়ায় হামলা হয়েছে।
শ্রী শ্রী গৌর মন্দির, শ্রী শ্রী শিব মন্দির, শ্রী শ্রী জগন্নাথ মন্দির, শ্রী শ্রী
কালী মন্দির নামে মন্দির ভাঙচুরের শিকার হয়েছে।
ওই সব এলাকার অমূল্য দাস, জয় কুমার সূত্রধর, নিরঞ্জন গোপ, নিধু ঘোষ, বিনোদ ঘোষ, সুশীল সরকার, গোপাল সূত্র, মোহন লাল, হিরালাল দাস, মন্টু ঘোষ, সুব্রত সরকার, প্রদীপ দাস, সজল সরকার, সুজন দেব, কাজল জ্যোতি দত্তসহ অনেকের বাড়িতে গিয়ে ভাঙচুর ও লোটপাটের দৃশ্য চোখে পড়ে। তাদের অনেকের বাড়ির ব্যক্তিগত মন্দিরও ভাঙচুরের শিকার হয়। উপজেলা পূজা উদ্যাপন সমিতির সভাপতি দত্তপাড়ার কাজল জ্যোতি দত্ত জানান, তার বাড়ি ও মন্দিরেও হামলা হয়। শত শত লোক অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়।
সুব্রত সরকার নামে এক ব্যক্তি জানান, তার বাড়িতে হামলা করতে আসা লোকজন প্রথমেই মারধর শুরু করে। মন্দিরে ভাঙচুরের পাশাপাশি তারা মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে যায়। প্রদীপ দাস নামে এক ব্যক্তি জানান, তার ভাই মানিক দাসের একমাত্র সম্বল মাছ ধরার জালটিও পুড়িয়ে দেয়া হয়।
এ সময় কয়েকজন পূজারী আহত হন। পরিস্থিতি
নিয়ন্ত্রণে আনতে প্রথমে এক প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়। পরে অন্যান্য বাহিনীও আনা হয় বলে জানান এসপি।
একটি ‘সুযোগ সন্ধানী’ মহল সরকারকে বিব্রত করতে এ ঘটনা ঘটিয়েছে দাবি করে এসপি মিজানুর এর জন্য জামায়াত-শিবিরকে
দায়ী করেছেন। “এ ঘটনার নেপথ্যে যারা রয়েছে, তাদের খুঁজে বের করে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে,” বলেন এসপি মিজানুর।
প্রতিটি ভাংচুরের ঘটনায় আলাদা মামলার প্রস্তুতি চলছে জানিয়ে এসপি মিজানুর বলেন, ইতোমধ্যে ছয় হামলাকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
১২ বিজিবির অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল শাহ আলী জানান, জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের অনুরোধে আইনশৃখংলা রক্ষার জন্যে বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। জেলা প্রশাসক রেজাওয়ানুর রহমান জানান, এলাকায় র্যাব, পুলিশ, এপিবিএন ও বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। তদন্ত করে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হবে। নাসিরনগর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান অঞ্জন দেব বলেন, বিকালের পর পরিস্থিতি দৃশ্যত শান্ত হলেও হিন্দু সম্প্রদায়ের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। “এদিকে যার বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলা হয়েছে তিনি তার ফেইসবুক পোষ্টে গতকাল একটি পোষ্ট শেয়ার করে তাতে লিখেছে যে, প্রথমেই আমি সকল ভাইদের কাছে ক্ষমা প্রার্থীনা করছি কারণ আমার অজান্তে কে বা কারা আমার আইডি থেকে একটা ছবি পোষ্ট করেছে ্কাল রাত্রে আমি মামুন ভাই আশু ভাই আর বিপুল এর মাধমে জানতে পারি ছবি পোষ্ট এর কথা তার আগ পর্যন্ত আমি কিছুই জানতাম না জেনে সাথে সাথে ডুকে ডিলেট করি।
যেখানে আমরা বসবাস করি হিন্দু মুসলিম ভাই ভাই হিসেবে ওইখানে ওই রকম মনমানসিকতা এবং দু:সাহস অবশ্যই আমার নাই। আমি কেন ? আমি মনে করি ওই মনমানসিকতা কারও নাই থাকা উচিত না ।
এছাড়া আমাদের মুসলিম ভাইয়েরা আমাদের ভিবিন্ন অনুষ্ঠানে সার্বিক সহযোগীতা করে থাকে। ওই খানে আমার আইডি থেকে এমন ছবি আমার অজান্তে বিভাবে পোষ্ট হল কে বা কারা ওই কাজটা করল আমি জানি না । তাই সকলের কাছে আমি ক্ষমা প্রার্থী ।” পূজা উদ্যাপন পরিষদ নাসিরনগর উপজেলা শাখার সাধারন সম্পাদক হরিপদ পোদ্দার বলেন, ’হামলাকারীরা ১০-১৫টি মন্দিরের পাশাপাশি দেড়শ’র বেশি বাড়িতে হামলা চালিয়েছে লুট করে নিয়ে যায়। আমরা এলাকায় শান্তি চাই। পরবর্তী পদক্ষেপের বিষয়ে প্রশাসনসহ সকলের সঙ্গে আলোচনা করব’।
Like 382 Likes



পোষ্টটি ফেসবুকে শেয়ার করুণ

Tags : ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হিন্দু সম্প্রদায়ের মন্দির ভাংচুর ঘরবাড়ি লুটপাট আহত শতাধিক

Site: Prev.Next.Last..1